Page Nav

HIDE

Grid Style

GRID_STYLE

Post/Page

Popular Posts

Breaking News:

latest

খেজুরিতে গৃহবধূর গলা কেটে খুনের নেপথ্যে ত্রিকোণ প্রেমের কাহিনী, পুলিশের জালে মাস্টার মাইন্ড মহিলা !



পূর্বমেদিনীপুর.ইন, খেজুরি : গত বৃহস্পতিবার রাতে শ্বশুরবাড়িতে নৃশংস ভাবে খুন হয়েছিলেন খেজুরির কামারদার গৃহবধূ মৌমিতা দাস। এই ঘটনার তদন্তে নেমে এক অদ্ভুত ঘটনা প্রকাশ্যে এনেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, গোটা ঘটনার পেছনে রয়েছে ত্রিকোণ প্রেমের গল্প। যেখানে মৌমিতাকে খুনের পুরো ষড়যন্ত্রের পেছনে রয়েছে এক মহিলা। তিনি মৃতার স্বামী অপরেশ দাসের পূর্বতন প্রেমিকা গৌরি মন্ডল।

সোমবার ধৃত মহিলাকে কাঁথি আদালতে তোলা হলে বিচারক তাঁকে ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে খেজুরির কামারদা এলাকার বাসিন্দা অপরেশ দাস ও তার বন্ধু সুমন মান্না থানায় গিয়ে অভিযোগ জানিয়ে বলে, তাঁর স্ত্রী মৌমিতা নিখোঁজ হয়ে গিয়েছে।

এরপরেই পুলিশ মৌমিতার বাপের বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ করে সেই কথা জানায়। তখনই মৌমিতার বাবা ভুপতিনগরের জুখিয়া গ্রামের বাসিন্দা রাজেশ্বর মাইতি ছুটে আসেন খেজুরি থানায়। সব শুনে তিনি জানান, কিছু সময় আগেই মেয়ের সঙ্গে তাঁদের ফোন কথা হয়েছে। তাই মেয়ে নিখোঁজ তা তাঁরা মানতে পারছেন না।

এরপরেই তাঁরা একপ্রকার জোর করে মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে গিয়েই টর্চ নিয়ে তাঁকে খুঁজতে শুরু করেন। এরপরেই বাড়ির কয়েকহাত দূরে মৌমিতার গলাকাটা দেহ দেখতে পাওয়া যায়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে দেহটিকে উদ্ধারের পাশাপাশি মৌমিতার স্বামী সহ শ্বশুর ও শাশুড়িকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

সেখানেই জিজ্ঞাসাবাদের পর অপরেশ জানায়, খুন করেছে সে নিজেই। এই ঘটনায় তাঁকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছে বন্ধু সুমন মান্না। পুলিশ রবিবার সুমনকেও গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। তারপর দুই জনকে ম্যারাথন জেরার পর ত্রিকোণ প্রেমের ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে।


পুলিশ তদন্তে জানতে পারে, অপরেশের সঙ্গে স্কুল জীবন থেকেই প্রেমের সম্পর্ক ছিল খেজুরির জাহানাবাদের বাসিন্দা গৌরি মণ্ডলের। তবে বছর দুয়েক আগে ভুল বোঝাবুঝির জেরে তা ভেঙে যায়। এরপরেই অপরেশের সঙ্গে মৌমিতার সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্ক তৈরি হয় এবং বছর দেড়েক আগে তাঁদের বিয়ে হয়।

কিং বিয়ের পরেই আবার উদয় হয় গৌরি। এবার পুরানো প্রেমিকাকে ফিরে পেতে পথের বাধা হয়ে দাঁড়ায় মৌমিতা। তাই তাঁকে পথ থেকে সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার খুনের আগে ও পরে অপরেশের সঙ্গে বহুবার মোবাইলে কথা হয় গৌরির। খুন করার পর কাজ হাসিল হয়ে গিয়েছে বলেও গৌরিকে জানানো হয়। পুরো ঘটনাটি আরও খতিয়ে দেখতেই এদিন গৌরিকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। 


  মোবাইলে আরও নিউজ আপডেট পেতে এইখানে ক্লিক করুন - Whatsapp